মধ্যপ্রদেশের কৃষকদের সাথে বিশ্বাসঘাতক করলো কংগ্রেস! ঋণ মাফ না হওয়ায় আত্মহত্যা করলো আরো এক কৃষক।


0

মধ্যপ্রদেশে ক্ষমতায় আসার আগে কংগ্রেস ঘোষণা করেছিল যে তারা ১০ দিনের মাথায় কৃষকদের লোন মাফ করে দেবে। আর সেই মতো মুখ্যমন্ত্রী পদে শপদ গ্রহণের পরেই কমলনাথ একটা চিঠিতে স্বাক্ষর করেছিলেন এবং ঘোষণা করেছিলেন যে কৃষি ঋণ মাফ হয়ে গেছে। দেশের বিক্রীত দালাল মিডিয়াও দাবি করেছিল যে মধ্যপ্রদেশে কৃষি ঋণ মাফ হয়ে গিয়েছে। কিন্তু আসলে ওই চিঠিতে যে সমস্থ শর্ত দেওয়া ছিল তার একটাও তুলে ধরেনি মিডিয়া। চিঠিতে যে সমস্ত শর্ত ছিল সেই অনুযায়ী মধ্যপ্রদেশের মাত্র ৯% কৃষকের লোন মাফ হবে। শুধু তাই নয়, যেহেতু চিঠিতে স্বাক্ষর মন্ত্ৰীমন্ডল গঠনের আগে করা হয়েছে তাই লোন মাফ হওয়া সম্পূর্ন অসাংবিধানিক।

কিন্তু এই সমস্থ কিছু এড়িয়ে গিয়ে মিডিয়া শুধু কংগ্রেসের গুনগান করতেই উঠে পড়ে লেগেছে। অন্যদিকে মধ্যপ্রদেশের কৃষকরা লাগাতার হতাশায় ভুগছে। জানিয়ে দি, মধ্যপ্রদেশে কংগ্রেসের ধোঁকাবাজির জন্য এখন কৃষকরা আত্মহত্যা করতে শুরু দিয়েছে। গতকাল মধ্যপ্রদেশে জুয়ান সিং নামের এক কৃষক আত্মহত্যা করেছে। জুয়ান সিং এর উপর ৫ লক্ষ টাকার কৃষি ঋণ ছিল।

জুয়ান সিং এর আশা ছিল যে কংগ্রেস এলে তার কৃষি ঋণ মাফ হবে। জুয়ান সিংকে ব্যাংক থেকে ডিফলটার ঘোষণা করে দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু কৃষি লোন মাফের তালিকায় এই কৃষকের নাম ছিল না, যা দেখার পর কৃষক আত্মহত্যা করেছে। কৃষকের এক মেয়ে রয়েছে যার বিয়ে আর্থিক কারণে ভেঙে গিয়েছে এবং ব্যাংকে ৫ লক্ষ টাকা লোনের জন্য কৃষক হতাশ ছিল।

গতকাল সকালে যখন কৃষকরা মাঠে যায়, তখন এক গাছে ঝুলে থাকা অবস্থায় জুয়ান সিং নামের কৃষককে দেখতে পাওয়া যায়। জুয়ান সিংয়ের এর ভাই জানিয়েছেন, কৃষি ঋণ মাফের তালিকায় তার নাম আসেনি, যারপর থেকে হতাশায় ভুগছিল সে। জুয়ান সিং এর মৃত্যুর জন্য তার পরিবারের লোকজন রাহুল গান্ধীকে দায়ী করেছে। তাদের দাবি রাহুল গান্ধী কৃষক ঋণ মাফ করার আশ্বাস দিয়ে কৃষকদের ঠকিয়েছে।


Like it? Share with your friends!

0
Krishna

0 Comments

Your email address will not be published. Required fields are marked *